বৈদ্যুতিক গাড়ির ভবিষ্যৎ হালচাল

যখন গাড়ি প্রস্তুতকারকরা তাদের সব প্রকৌশল ও শক্তি উজার করে দিচ্ছে ভবিষ্যতের একটি স্বাধীন চালকবিহীন গাড়ি তৈরির দিকে মনযোগ দিয়েছেন তখন ফোর্ড এর মনোযোগ বাক নিয়েছে বৈদ্যুতিক গাড়ির দিকে। তারা ঘোষণা করেছে, ২০২০ সালের মধ্যে তাদের লক্ষ্য হাইব্রিড MUSTANG এবং F-150 ট্রাক এর একটি লাইন তৈরি, আর সেই সাথে একটি সম্পূর্ণ বৈদ্যুতিক স্পোর্টস কার তৈরি করা।

বৈদ্যুতিক যানবাহন দেশের পেট্রোল নির্ভরতা হ্রাস করার অন্যতম উপায়, সে ব্যাপারে অন্যান্য গাড়ি প্রস্তুতকারকরা অঙ্গীকারবদ্ধ। ফোর্ড এই একই অঙ্গীকারের পেছনে তেরটি নতুন হাইব্রিড ও বৈদ্যুতিক মডেল তৈরি করে ফেলেছে! তারা পরিকল্পনা করেছে এর সাতটি মডেল আগামী পাঁচ বছরের মধ্যেই প্রস্তুত করা হবে। নতুন এই বৈদ্যুতিক গাড়ি কিন্তু শুধুমাত্র ভোক্তাদের ব্যবহারের জন্য নয়। একটি প্লাগ ইন হাইব্রিড ট্যাক্সি এবং বৈদ্যুতিক পুলিশ গাড়ি প্রস্তুত করাও ফোর্ডের পরিকল্পনার আওতা ভুক্ত।

বৈদ্যুতিক গাড়ির নেতিবাচক দিকটি হল একটি নির্দিষ্ট মাইল পর্যন্ত গাড়ি চলার পর চার্জ দেয়ার প্রয়োজন হয়। কিন্তু ফোর্ড এর বর্তমান বৈদ্যুতিক গাড়িই একমাত্র যে কিনা একবার চার্জ হলে একশ মাইল পর্যন্ত চলতে পারে। ফোর্ড একই ভাবে ২০২০ সালের মধ্যে ‘Ultra-fast Network’ তৈরি করতে যাচ্ছে। এটি ভবিষ্যৎ গাড়িতে বাড়তি গতি যোগ করবে যার পরিসর ৩০০ মাইল পর্যন্ত হতে পারে। তারা এমন এক ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখে যেখানে পার্কিং এর জায়গায় থাকবে গাড়ির তারবিহীন চার্জের প্রযুক্তি। প্লাগ ইন ছাড়াই হবে গাড়ি চার্জ।